৫৯ বছরের ইতিহাসে প্রথমবারের মত লোকসান গুনলো বাটা

আন্তর্জাতিক ব্র্যান্ড বাটা বাংলাদেশে ব্যবসা শুরু করে দেশ স্বাধীনের আগে ১৯৬২ সালে। দেশের ব্যবসায় তাদের তৈরি জুতা দখল করে আছে বিশাল একটা স্থান।

বাংলাদেশে বাটার প্রতিষ্ঠা লাভের পর থেকে কোনোদিনই লোকসানের মুখ দেখতে হয়নি। কিন্তু সম্প্রতি করোনা মহামারিতে প্রধান বিক্রয়ের সময়ই বন্ধ ছিল তাদের সব আউটলেট। যার কারণে দেশের ইতিহাসে প্রথমবারের মত লোকসানের শিকার হয়েছে নামী এই কোম্পানীটি।

২০২০ সালের হিসাব বছর শেষে তাদের মোট লোকসানের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ১৩২ কোটি ৬১ লাখ টাকা। যেখানে তারা আগের বছর লাভ করেছিল ৫০ কোটি টাকা।

বুধবার (০২ জুন) ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের ওয়েবসাইটে ২০২০ সালে শেয়ারপ্রতি ৯৬ টাকা ৯৪ পয়সা লোকসানের (যেখানে এর আগের বছর শেয়ারপ্রতি ৩৬ টাকা ১১ পয়সা লাভ হয়েছিল) তথ্য দিয়ে কোম্পানিটি বলেছে, “বাটা শু বাংলাদেশ ২০২০ সালে সামগ্রিক ব্যবসায় সঙ্কটের মধ্য দিয়ে গেছে, যা কোম্পানির আয়কে পিছিয়ে দিয়েছে।”

তারা জানায়, মহামারীকালে লকডাউনের কারণে ২০২০ সালে দুই ঈদ, পূজা এবং পহেলা বৈশাখের মতো উৎসবগুলোতে তেমন বিক্রি হয়নি। অথচ অন্যান্য বছর এসব উৎসব থেকেই মোট আয়ের ৩০ শতাংশ চলে আসতো। এছাড়া গত বছর ৭৭ শতাংশ ডিলার এবং/অথবা পাইকারি বিক্রেতা করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন।

এ বিষয়ে কোম্পানীটির বিপণন বিভাগের প্রধান ইফতেখার মল্লিক বলেন, বাটা বাংলাদেশে কখনো এতোটা খারাপ ব্যবসা করেনি। প্রতিবছরই বিক্রি বেড়েছে। করোনার কারণে সমস্ত রফতানি বাজার বন্ধ থাকায় ২০২০ সালে তেমন রফতানিই করতে পারেনি বাটা (মাত্র ১ কোটি ১০ লক্ষ টাকা)।”

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*